পিলার্স অফ ক্রিয়েশন- মহাকাশের বিস্ময়।

Pillars_of_Creation

১৯৯৫ সালের এপ্রিলে হাবল টেলিস্কোপে তোলা পিলারস অফ ক্রিয়েশনর প্রথম ছবিটি

পিলারস অফ ক্রিয়েশনঃ পিলার্স অফ ক্রিয়েশন হলো হাবল টেলিস্কোপ দিয়ে তোলা ঈগল নীহারিকার সৌরজাগতিক গ্যাস এবং ধূলার একটি ছবি যেটি পৃথিবী থেকে প্রায় সাত হাজার আলোকবর্ষ দূরে অবস্থিত। এই গ্যাস এবং ধূলা গুলো নতুন একটি তারা সৃষ্টির অবস্থায় থাকায় এর নামকরন করা হয়েছে পিলার্স অফ ক্রিয়েশন বা সৃষ্টির স্তম্ভ। হাবল টেলিস্কোপ দিয়ে তোলা মহাকাশের সেরা প্রথম ১০টি ছবির মধ্যে এটি অন্যতম।

hubble-m16-eagle-nebula-pillars-creation

২০১৪ সালে তোলা পিলারস অফ ক্রিয়েশন এর হাই রেজ্যুলেশন ভার্সন

পিলারস অফ ক্রিয়েশন এর  কিছু মজার তথ্যঃ

  • সবথেকে বায়ের যে বড় পিলারটি দেখা যাচ্ছে সেটির দৈর্ঘ্য মোটামুটি চার আলোকবর্ষ!
  • আর আঙ্গুলের মত প্রসারিত অংশটি আমাদের সৌর জগতের চেয়েও বড়!
  • হাবলের ছবিটি কম্পোজ করা হয়েছে ৩২টি ছবির সংমিশ্রণে যা তোলা হয়েছে ৪টি আলাদা ক্যামেরা দিয়ে।
  • সবচেয়ে মজার বিষয় হলো, অনেক বিশেষজ্ঞদের মতে এই পিলারস অফ ক্রিয়েশন ৬০০০ বছর আগেই ধ্বংস হয়ে গিয়েছে এক সুপারনোভার(নাক্ষত্রিক বিস্ফোরণ) কবলে পরে। কিন্তু যেহেতু এই পিলার আমাদের থেকে ৭০০০ আলোকবর্ষ দূরে অবস্থিত, এর ধ্বংসের আলো এখনো আমাদের নিকট এসে পৌঁছায়নি, যা আসতে আরো ১০০০ বছর সময় লাগবে।

এর মানে আমরা যে পিলারস অফ ক্রিয়েশনটি দেখছি তা প্রকৃতপক্ষে ৬০০০ বছরের অতীত এবং যার ভবিষ্যতও আমাদের সবারই জানা। অনেকে তাই একে পিলারস অফ ডেস্ট্রাকশন বা ধ্বংসের পিলারও বলে থাকে।

সূত্রঃ উইকিপিডিয়া

No comments yet.

-যা কিছু বলার-